ঢাকা   সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ১৩ আষাঢ় ১৪২৯   বিকাল ৫:১৯ 

সর্বশেষ সংবাদ

বই পর্যালোচনা : প্রবেশন ও প্যারোল আইন

যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ জজ মো. সাইফুল ইসলাম রচিত ‘প্রবেশন ও প্যারোল আইন – আইন, তত্ত্ব ও প্রয়োগ পদ্ধতি’ বইটি পাঠ করার সৌভাগ্য হলো। সহজ প্রাঞ্জল ভাষায় লিখিত সুপাঠ্য বইটি পাঠ করে প্রবেশন এবং প্যারোল সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারলাম।
শাস্তি প্রদানের বেশ কয়েকটি উদ্দেশ্যের মধ্যে অপরাধীকে সংশোধনের সুযোগ দিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার ব্যবস্থা করা অন্যতম প্রধান একটি উদ্দেশ্য। লঘুদণ্ডে দণ্ডিত অপরাধীকে শাস্তি হিসেবে জেলখানায় প্রেরণ না করে দণ্ড স্থগিত রেখে শর্তসাপেক্ষে মুক্তি প্রদান করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনার যে প্রক্রিয়া সেটিই মূলত প্রবেশনের মূল উদ্দেশ্য। জেলখানায় প্রেরণ করা হলে দাগী অপরাধীদের সংস্পর্শে এসে প্রথম বার লঘু অপরাধ করা কোনো ব্যক্তি আরও অপরাধে জড়িয়ে পড়ার আশংকা থাকে। সে কারণে প্রবেশনের মাধ্যমে তাকে সংশোধন করে সমাজের মূলস্রোতে নিয়ে আসা আইনের একটি মহৎ উদ্দেশ্য।

কিন্ত দুঃখজনক হলেও সত্য প্রবেশনের ওপর আইন থাকলেও বাস্তবে এর তেমন দৃশ্যমান প্রয়োগ ছিল না। সম্প্রতি যে কয়জন বিচারক এই আইনের বাস্তব প্রয়োগ ঘটিয়ে বিচার বিভাগে নবদিগন্তের সূচনা ঘটিয়েছেন, লেখক তাঁদের মধ্যে অগ্রগন্য। তিনি শুধু আইনের তত্ত্বের মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে আইনের বাস্তব প্রয়োগ ঘটিয়ে সফল হয়েছেন।

তিনি বইটিতে প্রবেশনের ইতিহাস, প্রেক্ষাপট, প্রয়োগ পদ্ধতি অত্যন্ত সহজ এবং প্রাঞ্জল ভাষায় বর্ণনা করেছেন। ৬ টি অধ্যায়ে ভাগ করে প্রবেশন এবং প্যারোলের যাবতীয় খুটিনাটি বিষয় এই বইতে পাওয়া যাবে। হাজতি আসামীর নিকটাত্মীয় মারা গেলে কিভাবে পুলিশ প্রহরায় নির্দিষ্ট সময়ের জন্য সাময়িক প্যারোলে মুক্তির মাধ্যমে জানাজায় অংশগ্রহণ করা যায় তার আবেদনের ও আদেশের নমুনা দেয়া হয়েছে। প্রবেশন সংক্রান্ত সকল ফরম, আদেশ এবং রিপোর্টের নমুনাও সংযোজন করা হয়েছে যা ভালোলাগার আবহটা আরো বাড়িয়ে দিয়েছে।

ব্যতিক্রমী এই বইটির অন্যতম বৈশিষ্ট্য হচ্ছে গতানুগতিক আইন বইয়ের মত ধারাভিত্তিক ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ করা হয়নি। বরং সকল শ্রেণি পেশার মানুষ যাতে প্রবেশন বুঝতে পারে সেজন্য ১ম অধ্যায়ে জীবন থেকে নেয়া গল্পের ছলে ছলে আইনের ধারণা দেয়া হয়েছে। আমি মনে করি বিচারক, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, আইনজীবী, পুলিশ, প্রবেশন অফিসার, সমাজসেবা অফিসার, জেল সুপার, মানবাধিকার কর্মীসহ আইনের শিক্ষার্থীগণ এই বইটি দ্বারা উপকৃত হবেন। আইন অঙ্গন ছাড়াও যেকোনো পাঠক, যারা এই বিষয়ে পড়াশুনা করতে আগ্রহী তারাও বইটি সংগ্রহ করে এই বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পারবেন। আমার জানামতে প্রবেশন এবং প্যারোলের ওপর আমাদের দেশে এটি প্রথম পুর্নাঙ্গ একটি বই, যেখানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কেস ল, কেস স্টাডিসহ বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

সর্বোপরি বইটি পড়তে গিয়ে দু’একটি মুদ্রণপ্রমাদ চোখে পড়েছে। আশা করি পরবর্তী সংস্করণে লেখক তা সংশোধন করে নেবেন। আমি বইটির বহুল প্রচার এবং সার্বিক সাফল্য কামনা করি। বইটি পাওয়া যাচ্ছে ঢাকাস্থ আমিন বুক হাউজ, ইউনিভার্সেল বুক হাউজ, বুক সিন্ডিকেট, সুপ্রীম কোর্ট বারের লাইব্রেরী, রাজশাহীর বইঘর, কুড়িগ্রামের হাসান বুক ডিপোতে। এছাড়া অনলাইনে একমাত্র পরিবেশক Mbb online marketing সারাদেশে কুরিয়ার খরচসহ ৪৫০ টাকায় বিক্রি করছে।

( মোঃ আব্দুল মালেক)
যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ, রংপুর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

three × three =

সবচেয়ে আলোচিত