ঢাকা   সোমবার, ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯   রাত ১১:১০ 

সর্বশেষ সংবাদ

ম্যুরালে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে এমপির ছবি: ৭ দিনের মধ্যে সরাতে বলেছে হাইকোর্ট

ম্যুরালে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবির সঙ্গে নিজের ছবি যুক্ত করে দিয়েছিলেন সুনামগঞ্জ ১ আসনের সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন। শুধু তিনিই নন, তার ভাই উপজেলা চেয়ারম্যান মোজাম্মলে হোসেন রুকনের ছবিও যুক্ত করে দেন। থাকা অন্য ছবি সরাতে সাত দিনের সময় দিয়েছেন আদালত। সম্প্রতি সুনামগঞ্জের ধর্মপাশায় সরকারিভাবে নির্মিত ম্যুরালের মূল নকশা পরিবর্তন করে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবির নিচে স্থানীয় সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন ও তার ভাই উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন রুকনের ছবি যুক্ত করা হয়।
গত রোববার এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি কে এম কামরুল কাদের ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। এ ঘটনায় আদালত বলেন, ‘এটা তো গুরুতর অসদাচরণ।’ এ সময় সাত দিনের মধ্যে এসব ছবি অপসারণ করতে সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন আদালত।
বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে দেশের ৬১টি জেলা পরিষদ কমপ্লেক্সে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব’-এর ম্যুরাল নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এডিপির অর্থায়নে সুনামগঞ্জের মধ্যনগর ব্রিজসংলগ্ন এলাকায় এই ম্যুরাল নির্মাণ করা হয়। এতে ম্যুরালের মূল নকশা পরিবর্তন করে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবির সঙ্গে স্থানীয় এমপি ও তার ভাইয়ের ছবি জুড়ে দেওয়া হয়।
এই ছবি কেন যুক্ত করা হয়েছে, তার ব্যাখ্যা চেয়ে ম্যুরাল নির্মাণের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান রানা ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী মো. ইজাজুর রহমান রানাকে চিঠি দেন সুনামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মুনতাসির হাসান। এরপর এ ঘটনায় হাইকোর্টে রিট করেন মধ্যনগরের অধিবাসী রাসেল আহম্মেদের স্ত্রী আওয়ামী লীগ নেত্রী সাজেদা আহম্মেদ। সূত্র-দৈনিক কালবেলা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সবচেয়ে আলোচিত