ঢাকা   শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯   সকাল ৬:২২ 

সর্বশেষ সংবাদ

করোনা নিয়ে চীন – আমেরিকা বিবাদ; হু’র প্রধানের বিরুদ্ধে ১০ লাখ মানুষের পিটিশন

বিশ্বেজুড়ে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার জন্য চীনকে আগেই কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এবার ট্রাম্পের হুঁশিয়ারি, করোনার মতো মহামারি ছড়ানোর দায়ে চীনের কাছে মোটা অঙ্কের আর্থিক ক্ষতিপূরণও দাবি করতে পারে তাঁর সরকার। সেই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, বিশ্বজুড়ে করোনা-সংক্রমণ ছড়ানোয় চীনের ভূমিকা নিয়েও তদন্ত শুরু করেছে মার্কিন প্রশাসন।
এদিকে চীনে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পরও তা নিয়ে লুকোচুরি করা এবং ব্যবস্থা না নেয়ায় বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার প্রধানের পদত্যাগ চেয়ে বিশ্বজুড়ে অনলাইনে পিটিশন দেয়া শুরু হয়েছে।
ইতিমধ্যে আবেদনকারির সংখ্যা ১০ লাখ ছড়িয়ে গেছে।
খবর বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমের।
ট্রাম্প মনে করেন আগামী নির্বাচনে তিনি যাতে ফের জিততে না পারেন এ জন্য চীন নানামুখি চেষ্টা চালাচ্ছে।
করোনা-সংক্রমণ রোধে চীনের ভূমিকা নিয়েও অসন্তুষ্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মতে, চীন সক্রিয় ভাবে প্রথমেই তা রুখে দিলে, গোটা বিশ্বে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ত না আর তা মহামারির আকারও নিত না। চীনের উদ্দেশে ট্রাম্প বলেন, ‘‘(করোনা-মোকাবিলায়) চীনের ভূমিকায় আমরা একেবারেই সন্তুষ্ট নই। গোটা (করোনা) পরিস্থিতি নিয়েও সন্তুষ্ট নই। কারণ আমাদের বিশ্বাস, একে (করোনা-সংক্রমণকে) গোড়াতেই রোখা যেত। এবং দ্রুত রোখা হলে তা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ত না।’’

গত বছরের ডিসেম্বরের শেষে মধ্য চীনের উহান শহরে প্রথম নোভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হয়। যা এখন ছড়িয়ে পড়ে গোটা বিশ্বে। লকডাউন-সহ একাধিক বিধিনিষেধ সত্ত্বেও তাতে রাশ টানা যায়নি। বিশ্ব জুড়ে এই ভাইরাসে ৩০ লাখেরও বেশি আক্রান্ত হয়েছেন। মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২ লক্ষ ২০ হাজারের উপরে। তবে করোনায় আক্রান্তের নিরিখে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র । সে দেশের সংক্রমিতের সংখ্যা প্রায় ১০ লাখের বেশি। মৃত্যু হয়েছে ৬০ হাজারেরও বেশি। এই ভাইরাসের সংক্রমণ বিশ্বে ছড়িয়ে প়ড়ার জন্য ট্রাম্প প্রশাসন এর আগেও বহু বার চীনকে দায়ী করেছে। গোটা পরিস্থিতির জন্য ফের এক বার চীনকে দুষেছেন তিনি। সে জন্য চীনকে বড়সড় আর্থিক ক্ষতিপূরণও দিতে হতে পারে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ট্রাম্প। তাঁর কথায়, ‘‘নানা ভাবেই তাদের (চীন সরকারকে) দায়ী করা যায়।’’

শুধুমাত্র ট্রাম্প প্রশাসনই নয়, এর আগে জার্মানির একটি সংবাদপত্রও সংক্রমণ ছড়ানোর জন্য চীনকে দায়ী করেছে। এমনকি, ওই সংবাদপত্রের সম্পাদকীয়তে মন্তব্য, চীনের উচিত জার্মানিকে ১৬ হাজার ৫০০ কোটি ডলারের ক্ষতিপূরণ দেওয়া। চীনের কাছ থেকে আর্থিক ক্ষতিপূরণের কথা বললেও, তার পরিমাণ কত হবে, তা নিয়ে এখনই অবশ্য কোনও মন্তব্য করেননি ট্রাম্প। তিনি বলেন, ‘‘আমরা এখনও চূড়ান্ত আর্থিক অঙ্ক ঠিক করে উঠতে পারিনি। তবে তা বেশ বড়সড় অঙ্কের হবে। কারণ এতে শুধু আমেরিকার ক্ষত তৈরি করেনি, বিশ্বজোড়াই ক্ষতি হয়েছে।’’

এদিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনা মহামারি রুখতে একেবারে ব্যর্থ। হু প্রধান টেড্রোস আধানম ঘেব্রেইসুস চীনের প্রতি পক্ষপাতদুষ্ট। এই অভিযোগ তুলে হু প্রধানের পদত্যাগ দাবি করলেন অন্তত ১০ লক্ষ মানুষ।

করোনা রুখতে ব্যর্থতার অভিযোগ তুলে হু প্রধানের বিরুদ্ধে একটি অনলাইন পিটিশন তৈরি করা হয়। যাতে লেখা ছিল, ‘গত ২৩ জানুয়ারি ২০২০ সালে টেড্রোস আধানম ঘেব্রেইসুস করোনা ভাইরাসকে মহামারি ঘোষণা করতে অস্বীকার করেন। আমরা সকলেই জানি এই মুহূর্তে করোনা ভাইরাসের কোনও প্রতিষেধক নেই। সেদিনের পর মাত্র ৫ দিনে করোনার সংক্রমণ এবং মৃত্যুর সংখ্যা প্রায় ১০ গুণ বেড়ে যায়। আর এর দায় অনেকাংশে টেড্রোস আধানম ঘেব্রেইসুসের। তিনি এই ভাইরাসের ক্ষমতাকে গুরুত্ব দেননি। আমাদের মনে হয় টেড্রোস আধানম হু প্রধানের পদে থাকার উপযুক্ত লোক নন। তাই, এখনই তাঁর পদত্যাগ করা উচিত। আমরা বিশ্বাস করি হু রাজনৈতিকভাবে নিরপেক্ষ। কিন্তু চীন সরকার যে আক্রান্ত ও মৃতের তালিকা দিয়েছিল, সেটাই অন্ধের মতো বিশ্বাস করেছেন ঘেব্রেইসুস।’ অনলাইনে এই পিটিশনটিতে এখনও পর্যন্ত ১০ লক্ষেরও বেশি মানুষ সই করেছেন।
এর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও চীনের তাবেদারি করার অভিযোগ তুলেছিলেন হু’র বিরুদ্ধে। তিনি বলেছিলেন, ‘করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের যে সংখ্যা চীন দেখাচ্ছে, তাতে গলদ আছে। আসল তথ্য চেপে যাওয়া হচ্ছে।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সবচেয়ে আলোচিত