ঢাকা   সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮   বিকাল ৩:৩৫ 

নতুন সেনাপ্রধান হচ্ছেন শফিউদ্দিন আহমেদ

লেফটেন্যান্ট জেনারেল এসএম শফিউদ্দিন আহমেদকে জেনারেল পদে পদোন্নতি দিয়ে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রধান হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তিনি আগামী ২৪ জুন সেনাপ্রধানের দায়িত্ব নেবেন। বৃহস্পতিবার প্রতিরক্ষা...

সর্বশেষ সংবাদ

ব্যবসায়ী নাসির মাহমুদসহ ৬ জনকে আসামি করে সাভার থানায় নায়িকা পরীমণির মামলা

চিত্রনায়িকা পরীমণিকে নির্যাতন ও হত্যাচেষ্টার ঘটনায় সাভার থানায় মামলা হয়েছে। মামলায় ঢাকা বোট ক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও আবাসন ব্যবসায়ী নাসির ইউ. মাহমুদ ও অমির...

খালেদা জিয়ার জন্মদিন বিতর্ক গড়ালো আদালতে; সব নথি চেয়েছে হাই কোর্ট

খালেদা জিয়ার জন্মদিন বিতর্ক গড়ালো আদালতে; সব নথি চেয়েছে হাই কোর্ট বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জন্মদিন নিয়ে যে বিতর্ক আর সন্দেহ রয়েছে...

ধর্ষণ মামলায় শিশু আসামি; জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ৩ পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ হাইকোর্টের

বরিশালের বাকেরগঞ্জ থানায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে চার শিশুকে গ্রেফতার পরে কারাগারে পাঠানোর ঘটনায় জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এবং ওসিসহ ৩ পুলিশের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ...

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা: কার্টুনিস্ট কিশোর-সামিসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সামিউল ইসলাম খান ওরফে সায়ের জুলকারনাইন ওরফে সামি এবং কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোর ও রাষ্ট্রচিন্তার মো. দিদারুল ইসলামসহ সাতজনের বিরুদ্ধে...

জননেতা নেই

সবকিছু আইনের গতিতে চললে হয় না,চলেও না। রাজনৈতিক সরকারের অনেক সিদ্ধান্ত রাজনৈতিকভাবে নিতে হয়। আমলা-কামলাদের সিদ্ধান্তের দিকে রাজনৈতিক সরকার তাকিয়ে থাকলে সেই সরকার জনবান্ধব হবে না।
অন্য দলেতো নেইই আওয়ামী লীগেও আর জনবান্ধব জননেতা নেই। সামাদ আজাদ নেই,জিল্লুর রহমান নেই, সুরঞ্জিত সেন নেই, আব্দুল জলিল নেই, সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম নেই। অন্ধের যষ্টির মতো তোফায়েল আহমদ, আমির হোসেন আমু আছেন। কিন্তু তারা শুধু গণাতেই আছেন, অস্তগামি সূর্যের মতো।

রাজনীতিতে এখন কোনো জননেতা নেই। না আওয়ামী লীগে, না বিএনপিতে। জননেতাদের বাড়ির দড়জা জনতার জন্য উন্মুক্ত থাকতো। দিন রাতে কে আসতো কে যেতো কেউ জানতো না। এলাকার মানুষ, দেশের মানুষ, সাংবাদিক, লেখকরা এসব জননেতার সংস্পর্শে যখন খুশী যেতে পারতেন। সমস্যার কথা বলতে পারতেন। তারা মন্ত্রী মিনিস্টার হলেও জনতা থেকে দূরে যেতে পারতেন না। আমি নিজেও প্রয়াত জননেতা আব্দুস সামাদ আজাদের কলাবাগান ডলফিন গলির বাসা, সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের জিগাতলার বাসায় সরেজমিনে গিয়ে দেখেছি। এলাকার হিসেবে এলাকার মানুষের সঙ্গে যেতাম। তাদের বাসা সবার জন্য উন্মুক্ত ছিল।
কিন্তু তাদের উত্তরাধিকাররা এর ধারে কাছেও নেই। এই দুই নেতার বাসায় এখন কেউ যায় না। কারণ তাদের উত্তরাধিকাররা কর্পোরেট সংস্কৃতিতে উত্তোরণ ঘটিয়েছেন।
যেটা বলছিলাম, রাজনীতিতে জননেতা তো নেইই, কথা বলার মতো নেতাও নেই। সবাই এখন কর্পোরেট নেতা। স্যুটেড বুটেড নেতা। সবার দড়জা জনতার জন্য বন্ধ। দেখা করতে হলে পিএস,এপিএস, পিআরওর সঙ্গে এপোয়েন্টমেন্ট করতে হয়। নেতারা ফোন ধরেন না, মানুষের কথা শুনেন না। মানুষ তাদের কাছে যাক সেটা তারা পছন্দও করেন না। সেটা যে স্তরের মানুষই হোক। সারাক্ষণ ঘিরে রাখেন সচিব, উপসচিব, পিএস এপিএসরা।
আমি নিশ্চিত সাংবাদিক রোজিনা থেকে উদ্ভুত যে জটিলতা এবং এ থেকে সাংবাদিকদের সঙ্গে সরকারের যে দূরত্ব বাড়ছে আওয়ামী লীগে যদি সেই জননেতারা থাকতেন তা হলে সেটা ২৪ ঘন্টার মধ্যে সমাধান হয়ে যেতো। সাংবাদিক নেতারদের ডেকে নিয়ে সমাধান করে দিতেন। আইনের গতিতে আইন চলুক সেটা বলতেন না। মানুষের পালস বুঝেই তারা সমাধান দিতেন। রাজনৈতিক নেতার সঙ্গে এখনকার কর্পোরেট নেতাদের মৌলিক পার্থক্য এটাই।
কর্পোরেট নেতা চলেন আমলার কথায় আর রাজনৈতিক নেতা চলেন জনতার কথায়।
কর্পোরেট নেতারা বুঝতে পারছেন না, রোজিনার ঘটনায় সরকারের ক্ষতি কতটুকু হলো। প্রতিপক্ষের হাতে তারা কি অস্ত্র তুলে দিলেন। সাংবাদিক নির্যাতনের কি কি পোষ্টার হবে তার ছবি কিন্তু তৈরী করে দিলেন এই আমলা আর কর্পোরেট নেতারা।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়া আর একজন মন্ত্রী নেতাও কি নেই যিনি ধমক দিয়ে বলতে পারেন যে এটা ভুল হচ্ছে? দোষি আমলা -সাংবাদিককে ডেকে নিয়ে জবাব চাইতে পারেন? সাংবাদিক নেতাদের ডেকে নিয়ে আদালতের বাইরেই এটা সমাধান করে দিতে পারেন? আগে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করা জরুরী তারপর দেখা যাবে কে দোষী আর নির্দোষী। এটাইতো রাজনৈতিক বিচক্ষণতা।
সবকিছু প্রধানমন্ত্রীকে করতে হবে কেনো? প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তের দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে কেনো? তা হলে দলের নেতাকে তথ্যমন্ত্রী করা হয়েছে কেনো? তিনি কি শুধু চটকদার কথা বলবেন? তিনি পারেন না দায়িত্ব নিয়ে বিষয়টি সমাধান করে দিতে? তিনি সাংবাদিকদের অভিভাবক না?
জানি এ প্রশ্নগুলোর কোনো উত্তর নেই।

মন্তব্য করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন

সবচেয়ে আলোচিত

ধর্ষণ মামলায় শিশু আসামি; জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ৩ পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ হাইকোর্টের

বরিশালের বাকেরগঞ্জ থানায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে চার শিশুকে গ্রেফতার পরে কারাগারে পাঠানোর ঘটনায় জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এবং ওসিসহ ৩ পুলিশের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ...

রেলওয়ের ৮০ ভাগ ইঞ্জিনের আয়ুশেষ, ৬৫ বছরের পুরোনো ইঞ্জিন দিয়ে গতি পাচ্ছে না ট্রেন, বিপর্যয়ের আশঙ্কা

রেলের ৮০ ভাগ ইঞ্জিনেরই আয়ুষ্কাল শেষ হয়ে গেছে। মেকানিক্যাল কোড অনুযায়ী রেলের একটি ইঞ্জিনের স্বাভাবিক আয়ুষ্কাল ধরা হয় ২০ বছর। কিন্তু সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশ...

ভারতে নারী পাচার: দেশে ফিরে স্বামীসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে আরেক নারীর মামলা

ভারতে পাচার হওয়ার পর সেখান থেকে পালিয়ে দেশে ফিরে আসা আরও এক নারী তার স্বামীসহ পাচারকারী চক্রের নয় জনের নাম উল্লেখ করে মামলা করেছেন।...

প্রেসিডেন্ট জিয়া হত্যা: মিউটিনির বিচার প্রশ্নবিদ্ধ, হত্যা মামলার বিচার হয়নি, রায় বাতিল করে রিভিউ চেয়েছিলেন এডভোকেট সিরাজুল হক

১৯৮১ সালের ৩০ মে চট্টগ্রামে এক ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানে নিহত হন প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান। ৪০ বছর পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত এ হত্যার মূল রহস্য...

সিলেটের তারাপুর চা বাগান, দখলদার রাগীব আলী সুপ্রিমকোর্টের রায় মানছেন না, ক্ষতিপূরণ দিচ্ছেন না, স্থাপনাও সরাচ্ছেন না

গভীর সংকটে পড়েছে সিলেটের প্রায় ২ হাজার কোটি টাকার দেবোত্তর সম্পত্তি তারাপুর চা বাগান। আদালতের নির্দেশে ব্যবস্থাপনা কমিটি দায়িত্ব গ্রহণের পর আলোচিত এ চা...