ঢাকা   সোমবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২৩, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪৩০   সন্ধ্যা ৭:০৪ 

সর্বশেষ সংবাদ

আইডিয়াল স্কুলের আতিকুরের দেশত্যাগে আদালতের নিষেধাজ্ঞা

দুর্নীতির অভিযোগে রাজধানীর মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রশাসনিক কর্মকর্তা কাম উপ-সহকারী প্রকৌশলী আতিকুর রহমান খানের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে আদালত।
দুদকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে রোববার (৮ আগস্ট) ঢাকার সিনিয়র স্পেশাল জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালত এ আদেশ দেন।
জানা যায়, আতিকুর রহমান কনকর্ড নামে একটি ডেভেলপার প্রতিষ্ঠানের চাকরি ছেড়ে ২০০৪ সালে মতিঝিল আইডিয়াল স্কুলে উপ-সহকারী প্রকৌশলী পদে যোগদান করেন। স্কুলে যোগদানের পর তিনি ভর্তি বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িয়ে আয়কৃত অর্থ দিয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেন। এর মাঝে বনশ্রী এলাকায় খান ফিলিং অ্যান্ড এলপিজি, বনশ্রী মসজিদ মার্কেটে বিশ্বাস লাইব্রেরি, আফতাবনগরে বি ব্লকে বিশ্বাস বাজার, বনশ্রী ৫ নম্বর সড়কের ১২ নম্বর প্লটে ভিশন-৭১ নামে একটি রিয়েল এস্টেট প্রতিষ্ঠান, আফতাবনগরে চারটি বাড়ি এবং বনশ্রীতে আরেকটি বাড়ির সন্ধান পাওয়া গেছে। এছাড়া দেশের ১৫টি ব্যাংকে আতিকুর রহমান খানের ৯৭টি ব্যাংক হিসাবের তথ্য পাওয়া গেছে। ব্যাংক হিসাবগুলোতে ২০০৭ সাল থেকে চলতি বছরের ২৮ মার্চ পর্যন্ত ১১০ কোটি ৬৯ লাখ ৯২ হাজার ৩৯২ টাকা লেনদেন হয়েছে।
দুদকের অনুসন্ধানে জানা গেছে, আতিকুর রহমান খানের মালিকানাধীন ন্যাশনাল ফ্রায়েড চিকেনের নামে সাউথইস্ট ব্যাংকে ২০১৫ সালে একটি হিসাব খোলা হয়। ওই হিসাবে প্রায় সোয়া ২ কোটি টাকা লেনদেন হয়েছে। কিন্তু সরেজমিন আফতাবনগরে সেই প্রতিষ্ঠানের কোনো হদিস পাওয়া যায়নি। এছাড়া আতিকুর রহমান খানের মালিকানাধীন এইচ কে খান এন্টারপ্রাইজের নামে প্রাইম ব্যাংকের একটি হিসাবে ৮ কোটি টাকার লেনদেনের তথ্য পাওয়া গেছে। খোঁজ নিয়ে ওই প্রতিষ্ঠানের ঠিকানায় বনশ্রীর মসজিদ মার্কেটের বিশ্বাস লাইব্রেরি দেখা গেছে।
এসব অভিযোগের ভিত্তিতে দুদকের সহকারী পরিচালক মাহবুব রহমান আতিকুরকে দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করতে আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত তা মঞ্জুর করেন। এছাড়া তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠায় গত ৩ আগস্ট শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকেও তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সবচেয়ে আলোচিত