ঢাকা   মঙ্গলবার, ৩ আগস্ট ২০২১, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮   রাত ৮:২৮ 

সর্বশেষ সংবাদ

ফেইসবুকে প্রধান বিচারপতির পদত্যাগ চেয়ে পোস্ট দেয়ায় আইনজীবীকে আপিল বিভাগের তলব, আইন পেশায় বিরত থাকার নির্দেশ

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের পদত্যাগ দাবি করে ফেইসবুকে ‘অবমাননাকর’ মন্তব্য করায় সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. আশরাফুল ইসলাম আশরাফকে তলব করেছে আপিল বিভাগ।
ফেইসবুকে অবমাননাকর পোস্ট দেওয়ার কারণে তার বিরুদ্ধে কেন আদালত অবমাননার অভিযোগ আনা হবে না, আপিল বিভাগে হাজির হয়ে সেই ব্যাখ্যা দিতে হবে তাকে।

(ফেইসবুকে যা লিখেছিলেন আইনজীবী আশরাফুল ইসলাম)
আগামী ৮ অগাস্ট সকাল সাড়ে ৯টায় আপিল বিভাগে (এক নম্বর বিচার কক্ষে) সশরীরে হাজির হয়ে তাকে ব্যাখ্য দিতে বলা হয়েছে।   
সেই সঙ্গে ওইদিন পর্যন্ত তাকে আইন পেশা থেকে বিরত থাকতে বলেছে সর্বোচ্চ আদালত।
আর বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনকে (বিটিআরসি) আইনজীবী আশরাফের ওই ফেইসবুক পোস্ট অপসারণ করে তার সবগুলো ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন বৃহস্পতিবার আইনজীবী আশরাফুল ইসলাম আশরাফের ফেইসবুক পোস্টটি নজরে আনলে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ছয় বিচারকের আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেয়।    
আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারক মোহাম্মদ ইমান আলী আদেশে বলেন, “আইনজীবী মো. আশরাফুল ইসলাম আশরাফের ফেইসবুক স্টেটমেন্ট মারাত্মক অবমাননাকর। তার এই স্টেটমেন্ট সরাসরি প্রধান বিচারপতি এবং সুপ্রিম কোর্টকে আঘাত করেছে।”

(ব্যারিস্টার আশরাফুল ইসলাম)
পরে অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন বলেন, “মাননীয় প্রধান বিচারপতির পদত্যাগ ও উনার সমালোচনা করে গতকাল পোস্ট দিয়েছিলেন আইনজীবী আশরাফুল ইসলাম আশরাফ। কয়েকজন আইনজীবী সেটা আমাকে দেখিয়েছেন। আজ আমি এটা আদালতের নজরে আনলে বিচারপতি মহোদয়রা খুব উষ্মা প্রকাশ করেছেন এই ধরনের কার্যকলাপে।”
তিনি বলেন, “উনাকে (আশরাফ) তলব করা হয়েছে। আগামী ৮ অগাস্ট  সকাল সাড়ে ৯টায় তাকে সশরীরে হাজির হয়ে ব্যাখ্যা দিতে হবে, কেন তার বিরুদ্ধে আদালত অবমানার অভিযোগ এনে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না। তাকে আইন পেশা থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে। আপাতত কোনো কোর্টে সে কোনো মামলা করতে পারবে না। আর বিটিআরসিকে আদালত বলেছেন, তার ফেইসবুক অ্যাকাউন্টগুলো ব্লক করতে।” 
আইনজীবী আশরাফুল ইসলাম আশরাফ বলেছেন, সর্বোচ্চ আদালতের আদেশ তিনি ইতোমধ্যে জেনেছেন।
“আমি দেশের সাধারণ আইনজীবীদের স্বার্থের কথা চিন্তা করেই ফেইসবুকে পোস্ট দিয়েছি। এই পোস্ট দিয়ে আমি মোটেও হীনমন্য নই, আমি গর্বিত। আদালতের সামনে এসে আমি আমার ব্যাখ্যা দেব।”
অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন বিষয়টি আদালতের নজরে আনার সময় সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস কাজলও আদালতে ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন। সূত্র- বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

মন্তব্য করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন

সবচেয়ে আলোচিত