ঢাকা   বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯   সকাল ৭:০৩ 

সর্বশেষ সংবাদ

বিচারবিভাগ নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করায় আইনজীবীর বিরুদ্ধে সুপ্রিমকোর্টের নজিরবিহীন নিষেধাজ্ঞা, মামলায় লড়তে পারবেন না, ফেইসবুক বন্ধের নির্দেশ

বিচার বিভাগ নিয়ে ফেসবুকে ‘বিরূপ মন্তব্য’ করার কারণে এক আইনজীবীর বিরুদ্ধে নজিরবিহীন নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সুপ্রিমকোর্ট। ইউনুছ আলী আকন্দ নামের এই আইনজীবী দুই সপ্তাহ পর্যন্ত সুপ্রিম কোর্টের আপিল ও হাই কোর্ট বিভাগে কোনো মামলা পরিচালনা করতে পারবেন না। শুধু তাই নয়,
এই আইনজীবীর ফেইসবুক পেইজ থেকে বিচার বিভাগ নিয়ে তার মন্তব্য অপসারণ করে তার অ্যাকাউন্ট ‘ব্লক করতে’ বিটিআরসিকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নৃতৃত্বে চার বিচারপতির ভার্চুয়াল আপিল বেঞ্চ রোববার এই আদেশ দেন।
আদেশে ইউনুছ আলীর বিরুদ্ধে যে আদালত অবমাননার নোটিস জারি হয়েছে, আগামী ১১ অক্টোবর প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চে উপস্থিত হয়ে তাকে সে বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে।
কোনো ব্যক্তির ফেইসবুক বন্ধ করতে বিটিআরসিকে আদালতের নির্দেশ দেওয়ার ঘটনা নজিরবিহীন বলে জানিয়েছেন অনেক আইনজীবী।
নানা কারণে আদালত অঙ্গনে আলোচিত আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ। বিশেষ করে
যে কোনো বিষয় নিয়ে রিট করা নিয়ে তিনি আলোচিত। নামের আগে তিনি ডক্টরও লাগান। তার ডক্টরেট ডিগ্রি নিয়েও রয়েছে বিতর্ক। আদলতও একবার এ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল।
গত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি জাতীয় পার্টির মনোনয়নে ঢাকা-৮ আসন থেকে প্রার্থী হয়ে হেরে যান।
সম্প্রতি আইনজীবী ইউনুছ আলী বিচার বিভাগ নিয়ে ফেইসবুকে বিরূপ মন্তব্য করেন এমন অভিযোগে রোববার সকালে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে আপিল বেঞ্চের নজরে আনেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা।
ইউনুছ আলীর সেসব মন্তব্যে ‘গুরুতর আদালত অবমাননা’ হয়েছে দাবি করে তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ আনার আবেদন জানান তিনি।   
আদালত সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ফিদা এম কামাল, মনসুরুল হক চৌধুরী, আব্দুল মতিন খসরু, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ এম আমিন উদ্দিন, আইনজীবী মনজিল মোরেসদ ও আইনজীবী সমিতির সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস কাজলের বক্তব্য শুনেন। পরে আদেশ দেন। আদেশে এসব নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।
এর আগে গত আগস্ট মাসে বিচার বিভাগ নিয়ে ফেইসবুকে ‘বিরূপ মন্তব্য’ করায় আইনজীবী সৈয়দ মামুন মাহবুবের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল করেছিল সর্বোচ্চ আদালত।
পরবর্তিতে দোষ স্বীকার করে ক্ষমা চাওয়ার পাশাপাশি ভবিষ্যতে আর ‘অবমাননাকর মন্তব্য ’না করার প্রতিশ্রুতি দেয়া হলে আপিল বিভাগ মামুন মাহবুবকে অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেয়।
তবে সেই আদেশে আদালত বলে দেয়, “ভবিষ্যতের জন্য এই মামলার কার্যক্রম ধারণ করা হয়েছে এবং তা সংরক্ষণ করা হবে।’
আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ তার ফেইসবুকে বিচারবিভাগ নিয়ে কি মন্তব্য করেছেন তা জানা যায় নি। কারণ তার ফেইসবুক একাউন্ট লক করা থাকায় বন্ধু তালিকা ছাড়া কেউ ঢুকতে পারেন না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

4 × 4 =

সবচেয়ে আলোচিত