ঢাকা   বুধবার, ৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯   রাত ৮:১৩ 

সর্বশেষ সংবাদ

কসবায় ৮শ পরিবারের মাঝে আইনমন্ত্রীর ত্রাণ বিতরণ

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, উপজেলা ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি এবং দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্যোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় করোনা ভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্থ কর্মহীন হতদরিদ্র মানুষের মাঝে ১ কোটি ৭০ লাখ টাকার ত্রাণ বিতরণ চলছে।

প্রাথমিক পর্যায়ে ২৩ হাজার ৮৫৭ জনকে এ ত্রাণসামগ্রী প্রদান করা হচ্ছে। ত্রাণ হিসেবে চাল,ডাল,তেল,আলু,পিঁয়াজ ও সাবানের একটি করে প্যাকেট দেওয়া হচ্ছে।

হত দরিদ্র কর্মহীন মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে এসব ত্রাণসামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।

কসবা-আখাউড়ার সংসদ সদস্য ও আইনমন্ত্রী আনিসুল হক সার্বক্ষণিক ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম মনিটরিং করছেন। যারা ফােন করে খাদ্য সমস্যার কথা বলছেন,দলীয় নেতাকর্মী অথবা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে তাদের বাসায় জরুরি ভিত্তিতে খাবার পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করে দিচ্ছেন তিনি।

আইনমন্ত্রীর নির্দেশে কসবা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট রাশেদুল কাওসার ভুঁইয়া জীবন সকল ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের সঙ্গে উপস্থিত থেকে এ ত্রাণ বিতরণ করছেন।

সোমবারের মধ্যে কসবার ১০টি ইউনিয়নে প্রাথমিক পর্যায়ের এই ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম শেষ হবে। এরপর দ্বিতীয় পর্যায়ের
ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম শুরু হবে।

অন্যদিকে কসবা পৌরসভা ৪০০ জনকে ৪ মেট্রিক টন চাল , ২৫০ জনকে নগদ ৭৫ হাজার টাকা এবং দরিদ্র প্রসূতি মা’দের ১৫ হাজার টাকার শিশু খাদ্য প্রদানের প্রক্রিয়া শুরু করেছে।

এ দিকে
করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবেলায় আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হকের ব্যক্তিগত অর্থায়নে তাঁর নির্বাচনী এলাকা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় দ্বিতীয় পর্যায়ে ৮০০ পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ শুরু হয়েছে।

রোববার রাত থেকে আখাউড়া আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের সহায়তায় ৮০০ পরিবারের মাঝে এসব খাদ্যসামগ্রী বিতরণ শুরু হয়েছে।

খাদ্যসামগ্রীর মধ্যে রয়েছে প্রতি পরিবারের জন্য ১০ কেজি চাল, এক লিটার তেল, দুই কেজি আলু, মসুর ডাল দুই কেজি, লবণ এক কেজি ও সাবান একটা।

এসব খাদ্যসামগ্রী তিনদিনের মধ্যে রিকশা, অটো রিকশা ও ঠেলাগাড়ি চালক, ফেরিওয়ালা, ভিক্ষুক, ভবঘুরে, ফুটপাতের দোকানী, গৃহকর্মী, নৈশ প্রহরী ও শ্রমিক সহ দরিদ্র-অসহায় মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে পৌঁছে দেওয়া হবে।

এজন্য আখাউড়ার ৫টি ইউনিয়ন ও ১ টি পৌরসভার ৫৪টি ওয়ার্ডে কমিটি গঠন করা হয়েছে এবং ওয়ার্ড ভিত্তিক ৮০০ পরিবারের তালিকা তৈরি করা হয়েছে।

এর আগে গত সপ্তাহে প্রথম পর্যায়ে আখাউড়ার ৪০০ পরিবারের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়।

এদিকে, ঢাকায় বেকারিতে কাজ করা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ার পৌর এলাকার মসজিদ পাড়ার এক শ্রমিক বাড়িতে এসে কোনো কাজ পাচ্ছিলেন না। ঘরে খাবার নেই। ফোন করেন নিজ এলাকার সংসদ সদস্য আইনমন্ত্রী আনিসুল হককে। রাতেই খাবার পৌঁছে যায় ওই শ্রমিকের বাসায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মন্ত্রীর ঘনিষ্টজন আখাউড়া পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মো. তাকজিল খলিফা কাজল।
রবিবার বিকেলে তিনি জানান, ওই যুবক ছাড়াও আরো ১২ জনের কাছে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হয়।

ধরখারের বাসিন্দা অবসরপ্রাপ্ত সুবেদার মো. কাউছার ফোন করে মন্ত্রীকে জানান, তার বাড়ির আশেপাশের কয়েকজন দরিদ্র এখনো কোনো সহায়তা পাননি। মন্ত্রীর নির্দেশে তাদের কাছে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছানো হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

one × 3 =

সবচেয়ে আলোচিত